স্মৃতিশক্তি বাড়াতে কি কি করবে? স্মৃতিশক্তি বাড়ার সহজ উপায়?

 আসসালামু আলাইকুম আজকে আমরা এই আর্টিকেলে করব স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর উপায়। কিভাবে স্মৃতিশক্তি বাড়ানো যায়। অল্প স্থায়ী বা অল্প মেয়াদী স্মৃতি, দীর্ঘস্থায়ী বা দীর্ঘমেয়াদি স্মৃতি। সমগ্র মানুষের উদ্দেশ্য বলা হয়ে থাকে, সর্বস্থায়ী স্মৃতি বলতে বুঝায় মস্তিষ্ক খুব অল্প সময়ের জন্য যেসব স্মৃতিকে ধরে রাখতে পারে সেগুলো হচ্ছে সর্বলল্প স্থায়ী স্মৃতি।

আর দীর্ঘ সময়ের জন্য আমাদের, অর্থাৎ মানুষের মস্তিষ্কে যেসব স্মৃতি সংরক্ষিত থাকে,

সেগুলো বলা হয়ে থাকে দীর্ঘস্থায়ী স্মৃতি। দীর্ঘস্থায়ী স্মৃতিশক্তি বাড়াতে কিছু কুশল নিয়ে এই আর্টিকেলে মূলত আলোচনা করা হলো?




পোষ্টের সূচিপত্রঃ


  • স্মৃতিশক্তি বাড়াতে বা স্মৃতিশক্তি উন্নত করার ৮ টি কৌশলঃ
  • স্মৃতিশক্তি বাড়াবে যে খাবারগুলিঃ
  • স্মৃতিশক্তি বাড়াতে মস্তিষ্কের ব্যায়ামঃ
  • শেষ কথাঃ







স্মৃতিশক্তি বাড়াতে বা স্মৃতিশক্তি উন্নত করার ৮ টি কৌশলঃ

১/কোন বিষয় বস্তুর উপর গভীর মনোযোগ:-
প্রত্যক্ষ মানুষের ক্ষেত্রে স্মৃতি উন্নত করার আরো একটি কৌশল হল গভীর মনোযোগ।
গভীর মনোযোগ সহকারে কোন বিষয়বস্তু অধ্যায়ন করলে তা আয়ত্ত করা যেকোনো মানুষের পক্ষে সম্ভব হয়ে ওঠে

২/যেকোনো বিষয় নিয়মিত অধ্যায়ন:-
যেকোনো বিষয়ে সহজেই স্মরণযোগ্য হওয়া যা যদি বিষয়টিকে নিয়মিত অধ্যায়ন করা হয়ে থাকে। এর ফলে মস্তিষ্কের স্মৃতি উন্নত ও সমৃদ্ধ হতে থাকে।

৩/ স্বরণ সত্যি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ ও তথ্যপূর্ণ শিক্ষা:-
প্রত্যেক মানুষের তাদের জীবনে স্মরণ্ শক্তির বিকাশ ঘটাতে পারেন তাদের সম্পূর্ণ ও তথ্যপূর্ণ শিক্ষা লাভের মাধ্যমে। এই স্মরণ শক্তিকে ইংরেজিতে বলা হয় .memory power ।

৪/ শিক্ষা অর্জনের সংকল্প:- 
যেকোনো ব্যক্তির ক্ষেত্রে যা অবশ্যই দরকার, কোন বিষয়ের শিক্ষা অর্জন করা সংকল্প নেওয়া। তবে এই সংকল্প নেওয়ার মাধ্যমে অর্জিত হয় শিক্ষা।

৫/কেন কিছু বাবা:-
যেকোনো বার সময় আপনাদের ঠান্ডা মাথায় ভাবতে হবে। ঠান্ডা মাথায় মাথায় হাত রেখে বাবুন আপনি কি করতে চান। তাহলে আপনার মাথায় কিছু না কিছু আসবেই, মনে রাখবেন উত্তেজন হলে মাথায় কোন কিছু আসবে না। তাই ঠান্ডা মাথায় সবকিছু ভাবতে হবে।

৬/ অনুশীলনের মাধ্যমে স্মৃতির বিকা :- 
মানোবিজ্ঞানী স্টাউট.'stout' এর মতে সমগ্র মানবজাতির স্মৃতিশক্তি উন্নত ঘটে অনুশীলন এর মাধ্যমে;

৭/চিত্ত বিনোদনের মাধ্যমে স্মৃতির উন্নতি:- 
আমাদের অর্থাৎ সমগ্র মানুষের জীবনে গান,, খেলা টিভি দেখা. ইন্টারনেট চালানো করা ইত্যাদি চিত্র বিনোদন স্মৃতিকে উন্নত করতে সাহায্য করে। তবে একটানা কোন কিছু করলে অবসাদ আসে যা বিস্মৃতি শক্তি-কে বাড়িয়ে দেয়। সেজন্য বলা হয়ে থাকে প্রত্যেক মানুষের জীবনে চিত্র বিনোদনেরও প্রয়োজন রয়েছে।

৮/ ধ্যানের উপকারিতা:- 
মানুষের মস্তিষ্কের ক্ষেত্রে ধ্যান স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করার একটি পরীক্ষিত কৌশল। এমনকি দেন করার মাধ্যমে মানুষ তার মস্তিষ্কের উপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠান করতে পারে এবং নিয়মিত দেন মানুষের মস্তিষ্কের শীতল রাখতে সাহায্য করে। হলে যে কোন মানুষের পক্ষে কোন কিছু মনে রাখা সহজ হয়ে ওঠে।








স্মৃতিশক্তি বাড়াবে যে খাবারগুলিঃ

যে কোন স্বাস্থ্যকর খাবার মানুষের শরীর কি ঠিক রাখতে তা নয়. মানুষের মস্তিষ্কের সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। তবে স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে নানান প্রকার খাদ্য উপাদান গুলির মধ্য হল, বিশেষ ধরনের সামুদ্রিক মাছ।

সামুদ্রিক মাছঃ মানুষের মসজিদকে স্মৃতিশক্তি পক্ষে উপকারী মাছের মধ্যে স্যামন. সার্ডিন , টোনা. মেক রেল, প্রভৃতি মাছ নিয়মিত খেয়ে রাখা দরকার, কারণ এই মাছগুলি হল একপ্রকার তৈলাক্ত মাছ যা স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে বিশ্বাস উপকারী বলা যায়।

শস্যজাতীয় উপকারী খাবারঃ মস্তিষ্কের বিকাশের ক্ষেত্রে বিশেষ উপকারের শস্যজাতীয় খাবার হলো বাদাম ব্রকলি কুমরোর দানা ইত্যাদি। এই জাতীয় খাবার গুলি বেশি পরিমানে খেয়ে রাখা উচিত।

বাদামের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হলো কাঠবাদামঃ
বাদামের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ আয়ুর্বেদিক উপাদান হলো কাঠবাদাম। এই কাঠ বাদাম মস্তিষ্কের স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এমনকি এই কার্ড বাদামের মধ্যে পাখা এন্টিঅক্সাইডে চোখের জন্য ভালো। 


টমেটোর গুনাগুনঃ
টমেটোতে বিদ্যামান আছে লাইকো প্যান উপাদান যা খুব কার্যকরী এন্টিঅক্সাইডেন্ট। এজন্য মানুষের স্মৃতিশক্তি সক্রিয় রাখতে অবদান রাখে টমেটো। এ কারণে বলা হয়ে থাকে প্রতিদিন নিয়ম করে খাবারের সাথে টাকা টমেটো খেয়ে থাকলে বা সহছ খেয়ে থাকলে মস্তিষ্কের পক্ষে খুবই উপকারীঃ


স্মৃতিশক্তি বাড়াতে গরুর দুধ উপকারীঃ  
আমরা ছোটবেলা থেকে জেনেছি যে গরুর দুধে অনেক পুষ্টিকর রয়েছে। গরুর দুধ খেলে অনেক শরীর স্বাস্থ্য এবং কি স্মৃতিশক্তি ভালো থাকে।


শক্তি বৃদ্ধিতে ভিটামিন বি সমৃদ্ধ খাবারের অবদানঃ  
আমরা প্রত্যেককে জানি যে মাছ মুরগির মাংস ডিম এবং শাক জাতীয় খাবারের ভিটামিন, শাকসবজি এবং ফল ফলান্তি এতে অনেক ভিটামিন থাকে যার ফলে মস্তিষ্কে বাসিত শক্তি বাড়াতে পারে।





স্মৃতিশক্তি বাড়াতে মস্তিষ্কের ব্যায়ামঃ






  1.  প্রতিদিন ঘুমানোর ঠিক আগ মুহূর্তে ৫ মিনিট চোখ বন্ধ রাখুন। এরপর সারাদিন কি কি কাজ করছেন তা একটা লিস্ট মনে মনে করুন।
  2. সব সময় মনে রাখবেন ঠান্ডা মাথায় কাজ করলে এই কাজটি ভালো হয় তাই আপনারা সবসময় ঠান্ডা মাথায় যে কোন কিছু ভাববেন বা কিছু করবেন
  3. কোন কাজগুলো আপনার সঠিকভাবে সম্পূর্ণ রয়েছে তাও একটা লিস্ট মনে মনে একে হিলুম
  4. এবার কোন কাজগুলো আগে করছেন তার ধারাবাহিক একটা লিস্ট মনে মনে করে ফেলুন
  5. এবার ভালো করে যাচাই করে দেখুন আজকে কোন কাজ গেছে কিনা? এবার এভাবে কয়েকদিন প্র্যাকটিস করতে থাকুন{ কতগুলো কাজ মনে রাখতে পারছেন আর কতগুলো মনে রাখতে পারছেন না তার একটা হিসেব রাখুন,
  6. হিসেবে কোন কাজ যদি এড়িয়ে যান বলেও হতাশ হবেন না
  7. এভাবে এক সপ্তাহ আগেই যে কাজগুলো করছেন তার মনে করার চেষ্টা করুন.... মানুষের ব্রেন একটা অতি আর সহ্য জিনিস যে স্মৃতিগুলো আপনি মনে রাখছেন ভুলে গেছেন তা কখনো অক্ষুন্ন আছে
  8. একটু পরে বা অন্য কোন সময় ঠিক মনে করতে পারবেন এটা নিয়ে বেশি চিন্তা করার নাই;
  9. আমার জানা মতে থানকুনি পাতা. কাছে বেল এর সাথে বেজে খেলে স্মৃতিশক্তি বেড়ে যায়। তবে উপরের ব্রেন এর প্রকাশটি করা অবশ্যই ভালো।
  10. অতিরিক্ত কোনো কথা বলা যাবে না. আপনি যেটা নিয়ে চিন্তিত আছেন সেটা নিয়ে ভাবুন তাহলে আপনার জন্য ভালো হবে।







শেষ কথাঃ



 আমাদের আর্টিকেলটা যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে আমাদের পাশে থাকবেন এবং আমাদের এই অফসাইটি ভিজিট করে তার পাশে থাকুন... ধন্যবাদ..









Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url